মেনু নির্বাচন করুন
গল্প নয় সত্যি

একি

জনাব আব্দুল হাই বখস ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন যা থেকে বেড়িয়ে এছেসে বিস্ময়কর সত্য
Hai Bakhsho is with রাহাদ সুমন and 2 others at Banaripara Sadar upzala.
 

প্রিয় বন্ধুর! এই মায়া রানী দাসের জন্য আমার পার্সোনাল বিকাশে আসা ১ হাজার টাকা এখন আমি কি করবো? টাকা পাঠিয়েছে জম্বদ্বীপ গ্রামের বাসিন্দা চট্টগ্রামে চাকরীরত Md Abdul Alim. ফেসবুকে লেখালেখির পর মায়া রানী দাসের ছেলে ও ছেলের বৌ এখন মুখ দেখাতে পারছেনা। অামার এক প্রিয় ছাত্রের পোষ্ট থেকে ছবি কপি করে এই মহিলাকে নিয়ে গত ৩১ মার্চ একটি পোষ্ট দিয়েছিলাম। অামার পোস্ট লাইক করেছেন ১৫৫ জন। মন্ত্যব্য করেছেন ১৭ জন।সেয়ার করেছেন১০ জন। মন্তব্যকারীরা হোলেন:1. Krishok mostafa kamal montu. 2. Anisur Rahman Melon. 3.Burhan Uddin. 4. Md Ripan Hossain 5. S.Sohag 6. Shafiqul Islam Shahin. 7.হাইকেয়ার স্কুল, বানারীপাড়া, 8. Hasan Ahamed. 9. Md. Afzal Hossain. 10. Manoben- dro Saha. 11. Sonali Sarkar.12. Md Shiplu. 13. Ranjon Mandol Razon. 14. Babul Saha 15.Hemanto Saha.16. Jalis Mahmud. 17. Papri Ahmed.। অামি ২০১৩ সাল থেকে ফেসবুকে লেখি। কিন্তু, এই মহিলাকে নিয়ে লিখে এতবড় বোকা কোন দিন হোতে হয়নি। মন্তব্যকারীদের মন্তব্যে জানা গেল, মায়া রানীর ভিক্ষা করা নেশা ও পেশা। দয়া করে পড়ুন আমার সেই ৩১ মার্চে মায়া রানী দাসকে নিয়ে লেখায় বিভিন্ন মন্ত্যব্য। মায়া রানীকে ১ হাজার টাকা দেবার জন্য তার বাড়িতে আমার চেনা জানা লোকদের ফোন করে মায়া রানীকে অাসতে অনুরোধ করায় যা জানা গেলো, তা ভিমরী খাবার মত। তার নাকি অাছে লক্ষ লক্ষ টাকার সুদের ব্যাবসা। তার ছেলে ও ছেলের বৌতো এখন লজ্জায় মুখ দেখাতে পারছেনা। আজ ভোরেও ফোন করায় জানা গেলো, লজ্জায় মায়া রানীকে অামার বাসায় অাসতে দেবেনা। পরিশেষে, বন্ধুরা! অাসুন! অামরা মায়া রানীকে ক্ষমা করি। তার সেই অভাবী দিনগুলোর অভ্যাস অাল্লাহ ত্যাগ করার শক্তি দিন। বি: দ্র: আমার এ সংশোধিত পোষ্ট শতবর্ষি মায়া রানী দাসের ত্রুটিগুলো ভুলে যাবার জন্য এবং তার ছেলে ও ছেলের বৌ এর ইজ্জত রক্ষার জন্য। ধন্যবাদ। পুন: অামি ৩ বছর যাবৎ ফুসফুসের ইনফেকশন জনীত শ্বাস কষ্টের রোগী। বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বের বর্তমান অবস্থায় আমার মত ৭১+ বয়সী এ্যাজমা রোগীর পক্ষে ঘর থেকে বের হয়ে মায়া রানী দাসের বাড়িতে যাওয়া কোনমতেই সম্ভব নয়। গত ১৭.০৩.২০২০ থেকে বিধি মোতাবেক ঘরেই অবস্থান করছি। হে আল্লাহ্! উপরোক্ত কাজের মধ্যে অামার যদি কোন ত্রুটি পাও ক্ষমা করে দাও।

https://www.facebook.com/hai.bakhsho/posts/2737014279868185

ছবি/সংযুক্তি


ক্রম


Share with :

Facebook Twitter